October 24, 2020, 10:01 am

ঘোষনা :
 দৈনিক কুষ্টিয়া ও দি কুষ্টিয়া টাইমসের (প্রিন্ট ও অনলাইন উভয়) জন্য খুলনা বিভাগের (কুষ্টিয়া বাদে) সকল জেলায়  সংবাদদাতা আবশ্যক। আগ্রহীরা  (ই-মেইলে) আবেদন করুন অথবা ফোনে যোগাযোগ করুন। মোবাইল- ০১৭১৩-৯১৪৫৭০, ইমেইল: info.dailykushtia@gmail.com    
সংবাদ শিরোনাম :
নড়াইল/ কুষ্টিয়া জিলা স্কুলের সাবেক প্রধান শিক্ষক নিভা রাণীর স্বামী খুন নিম্নচাপ/দেশের পশ্চিম অংশে বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকবে মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের সকল সেবা বন্ধ থাকবে এক সপ্তাহ মেহেরপুরে সরকারী কর্মচারীকে কুপিয়ে হত্যা কুষ্টিয়ায় এক ঘন্টার ব্যবধানে ২ চাচাতো বোনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার ইলিশ সংরক্ষণ/কুমারখালীতে ৩ জেলেকে জরিমানা ভেড়ামারায় মরহুম রুস্তম স্মৃতি জুনিয়র ফুটবল টুনামেন্ট ২০২০ ফাইনাল চুয়াডাঙ্গা সীমান্তে নিহত বাংলাদেশীর লাশ ফেরত দিয়েছে বিএসএফ খোকসায় ভ্রাম্যমান আদালতে হোটেল মালিককে জরিমানা মেহেরপুরে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী/৫ থেকে ৭ ভাগ মুক্তিযোদ্ধা বাদ যাবে

চাল উৎপাদনে রের্কড : প্রধান খাদ্যশস্য উৎপাদন বৃদ্ধির বিশ্বে শীর্ষ দেশের তালিকায় বাংলাদেশ

দৈনিক কুষ্টিয়া প্রতিবেদন: নানা ফসলের দেশ বাংলাদেশ। বারো মাসে ১৮ ফসলের গল্প তো প্রাচীন। নানা ফসলের এই উৎপাদনে ইতেমধ্যে দেশ নানামুখী অগ্রগতি লাভ করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় দেশের ডানায় আরেকটি নতুন পালক যুক্ত হযেছে এটি হলো প্রধান খাদ্যশস্যের উৎপাদন বাড়ানোর তালিকায় বিশ্বে শীর্ষ¯’ানীয় দেশের তালিকায় উঠে এসেছে বাংলাদেশ। ফসলগুলোর তালিকায় রয়েছে আউশ, আমন, বোরো, আলু, গম ও পাট।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) এ হিসেব দেখিয়েছে। এছাড়া আরো ১২০টি অপ্রধান ফসলের হিসাবও করা হয়েছে। এগুলোর মধ্যে সবচে বেশী অগ্রগতি সাধিত হয়েছে চাল উৎপাদনে। দেশে শিল্প-অগ্রগতি যাই ঘটুক, মানুষের পেশায় নান পরির্বন যাই আসুক এ দেশ এখনও কৃষি প্রধান দেশ। বর্তমানে কৃষিতে নিয়োজিত জনশক্তির সংখ্যা ৪০ দশমিক ৬ শতাংশ। স্বাধীনতার পর থেকে দেশে জনসংখ্যা দ্বিগুণ হয়েছে। তবুও কৃষিতে শ্রমশক্তির সংখ্যা কমেনি।


বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী ৪৬ দশমিক ৬১ শতাংশ খানা (পরিবার) কৃষি নির্ভর। এ থেকে বোঝা যায় কৃষি দেশের অর্থনীতিতে বিরাট অবদান রাখছে।

দেশে সবকিছু ছাপিয়ে চাল উৎপাদনে বিশাল সাফল্য অর্জিত হয়েছে। বর্তমানে দেশে চাল উৎপাদনের পরিমাণ ৩৬৪ লাখ মেট্রিক টন। বিবিএস সূত্র জানায়, স্বাধীনতার আগে ও পরে দেশে খাদ্য ঘাটতি থাকলে বর্তমানে দেশ খাদে স্বয়ংসম্পূর্ণ।

১৯৬৯-৭০ অর্থবছরে চাল উৎপাদন ছিল মাত্র ১১৮ দশমিক ১৪ লাখ মেট্রিক টন, বর্তমানে (২০১৮-১৯) বেড়ে হয়েছে ৩৬৪ লাখ মেট্রিক টন। চার বছর আগে চাল উৎপাদন হয়েছিল ৩৪৭ মেট্রিক টন। দেশে ১১ দশমিক ০৫ লাখ হেক্টর জমিতে ধান উৎপাদন করা হয়েছে। এর মধ্যে ২৭ দশমিক ৭৫ লাখ মেট্রিক টন আউশ, ১৪০ দশমিক ৫৫ লাখ মেট্রিক টন আমন এবং ১৯৫ দশমিক ৬১ লাখ মেট্রিক টন বোরো উৎপাদন করা হয়েছে। সরকারের যুগোপযোগী পরিকল্পনা, কৃষকের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা এবং বৈজ্ঞানিক কৃষি প্রযুক্তির ব্যবহারের ফলেই কৃষিতে এই সাফল্য অর্জন সম্ভব হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন..


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

পুরোনো খবর এখানে,তারিখ অনুযায়ী

MonTueWedThuFriSatSun
   1234
262728293031 
       
     12
31      
      1
2345678
16171819202122
23242526272829
3031     
     12
3456789
10111213141516
17181920212223
242526272829 
       
© All rights reserved © 2020 dainikkushtia.net
Design & Developed BY Anamul Rasel
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.